ফেসবুককে ব্যবহারকারীর তথ্য দেবে হোয়াটসঅ্যাপ


প্রকাশিত: ০৯ জানুয়ারি ২০২১ , ০৯:১৪ পিএম
ফেসবুককে ব্যবহারকারীর তথ্য দেবে হোয়াটসঅ্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপের দুই বিলিয়নের বেশি ব্যবহারকারীর তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে শেয়ার করতে সম্মত হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। বুধবার ঘোষণা দিয়ে এই তথ্য জানানো হয়।

ফোর্বস ও বিজনেস ইনসাইডারের খবরে জানা যায়, সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপের অ্যাপ নোটিফিকেশন অর্থাৎ টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য জেনে নেয়ার সুযোগ তৈরি হওয়ার ফলে ব্যবহারকারীরা রীতিমতো ঘাবড়ে যায়।

২০২১ সালের ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশনে সম্মতি না দিলে অ্যাকাউন্ট ডিলিট হয়ে যাবে। হোয়াটসঅ্যাপ যেসব তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে শেয়ার করবে সেসব তথ্য হলো ব্যাটারি লেভেল, সিগন্যাল গ্রহণের ক্ষমতা, অ্যাপ ভার্সন, ব্রাউজারের তথ্য, মোবাইল নেটওয়ার্ক, ল্যাংগুয়েজ ও টাইমজোন, আইপি অ্যাড্রেস, ডিভাইস পরিচালনার সময়সীমা।

টেকক্রাঞ্চ সংবাদমাধ্যমের সম্পাদক মাইক বাচার টুইটরে বলেন, ‘ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষার জন্য এখন সিগন্যাল এবং টেলিগ্রামই যথেষ্ট রইলো।’

টেসলার প্রধান নির্বাহী এলোন মাস্ক টুইটারে সবাইকে সিগন্যাল ব্যবহার করতে বলেছেন। টেসলার এই কর্মকর্তা ফেসবুকের সমালোচনা করে বলেন যে ফেসবুকের কারণেই বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটাল ভবনে হামলা হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপের মুখপাত্র বলেন, ফেসবুকের অবকাঠামো ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটকে কার্যকর করে তোলা এর উদ্দেশ্য। হোয়াটসঅ্যাপের নতুন টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন্স অনুযায়ী ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্ট ডিলিট করলে ব্যক্তিগত তথ্য গোপন রাখতে পারবেন না।

হোয়াটসঅ্যাপের নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়, ‘অ্যাকাউন্ট ডিলিট হলেও আপনার তথ্য হোয়াটসঅ্যাপের কাছে সবসময় থাকবে।’

এর আগে অ্যাপল হোয়াটসঅ্যাপসহ অন্যান্য আইফোনের অ্যাপনির্মাতাদের সঙ্গে নিয়ে ব্যবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহ শুরু করে।

অ্যাপল অ্যাপস্টোর জানায়, হোয়াটসঅ্যাপের অধিকার রয়েছে ব্যবহারকারীর ক্রয়ক্ষমতা, অর্থনৈতিক তথ্য, অবস্থান, যোগাযোগের উপায়, কনটেন্ট এবং অন্যান্য ডেটাসংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহের অধিকার রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপের মালিকানা কিনে নেয়ার পর থেকে হোয়াটসঅ্যাপ ফেসবুককে ব্যবহারকারীদের তথ্য দিয়ে আসছে। ২০১৬ সালে প্রথম ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য অ্যাপের তথ্য শেয়ার সুযোগ রাখে। নতুন করে ফেসবুকের সঙ্গে ব্যবহারকারীর তথ্য শেয়ার করতে সম্মত হওয়ার ফলে ব্যাপক আকারে ফেসবুকের তথ্য চুরির আশঙ্কা রয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এমন খবর প্রকাশ হয়েছে।