যেভাবে চিনবেন ভুয়া ওয়েবসাইট আর খবর

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮ , ০৮:৪৫ এএম
যেভাবে চিনবেন ভুয়া ওয়েবসাইট আর খবর

বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল বিপ্লবের এ সময়ে নতুন শঙ্কার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ভুয়া খবর বা ফেক নিউজ ছড়িয়ে দেয়ার বিষয়টি। যে কোনো আলোচিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভুয়া খবর ভাইরাল হওয়ার ঘটনা নতুন নয়।

বাংলাদেশে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে গুজব ছাড়ানো প্রতিরোধে আট সদস্যের মনিটরিং সেল গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন।

সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে ভুয়া খবর ছড়াতে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক বা প্রতিষ্ঠিত অনলাইন পোর্টালের ওয়েবসাইটের আদলে নকল ওয়েবসাইট তৈরি করছে কুচক্রী মহল। আজকের আয়োজনে কীভাবে অনলাইনে ভুয়া খবর, ছবি এবং ওয়েবসাইট চেনা যায়।

দেশে চলছে নির্বাচনী আমেজ। এ সময়ে সামাজিক মাধ্যম বা গণমাধ্যমগুলোয় ভুয়া খবর ঠেকানো এখন বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ঠেকাতে সরকার এরই মধ্যে গুজব শনাক্তকরণ সেল গঠন করলেও ভুয়া খবর ঠেকাতে শুধু আইনের কড়াকড়ি যথেষ্ট নয় বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

ভুয়া খবর কী - ভুয়া খবর অনেকটা আপেলের মতো। দোকানে এটাকে দেখতে সুস্বাদু মনে হতে পারে কিন্তু পরে হয়তো দেখলেন এটি পচে গেছে। খবর ও একই রকম দেখতে আকর্ষণীয় কিন্তু পরে দেখা যায় এটি মিথ্যা কোনো সংবাদ। জানিয়েছে বিবিসি।

যেসব মাধ্যমে ভুয়া খবর ছড়ায় - ফেসবুক, ইউটিউব, ওয়েবসাইট ও গণমাধ্যম। এসব মাধ্যমে প্রকাশিত ভুয়া খবরগুলো ব্যবহারকারীদের লাইক, কমেন্ট ও শেয়ারের কারণে ভাইরাল হয়ে যায়। আবার অনেক পোর্টাল তথ্য যাচাই-বাছাই না করেই খবর প্রকাশ করে।

কেন ভুয়া খবর ছড়ায় - ভুয়া খবর ছড়িয়ে পড়ার পেছনে মূলত তিনটি কারণ। ১. বিরোধী রাজনৈতিক দলকে কোণঠাসা করা। ২. ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়িয়ে দেয়া। ৩. রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল।

ভুয়া খবর শনাক্তের উপায় - ওয়েবসাইট: খবর পড়ার আগে দেখে নিতে হবে সেটির ওয়েবসাইট ঠিকানা। অপরিচিত বা সন্দেহজনক কোনো ঠিকানা দেখলে খবরটি ভুয়া হওয়ার আশঙ্কাই বেশি।

দেখতে হবে খবরটি কোন ওয়েবসাইট থেকে প্রকাশিত হয়েছে। ওয়েবসাইটের ইউআরএল যাচাই করে নিতে হবে। দেখতে পুরোপুরি মূল সাইটের মতোই দেশের শীর্ষস্থানীয় কিছু ওয়েবসাইটের ক্লোন সাইট তৈরি হয়েছিল।

সহজে কেউ বুঝতে পারবে না এটি ভুয়া সাইট। তবে যদি ওয়েবসাইটের ইউআরএলের দিকে লক্ষ্য করা হয় তাহলে বোঝা যাবে। যেমন- বিবিসি বাংলার ওয়েবসাইটের মূল লিংক www.bbc.com/bengali। আর ক্লোন সাইটের ডিজাইন এক হলেও ইউআরএল লিংক ছিল www.bbc-bangla.com

খবরের ফরম্যাট - ভুয়া খবর ছড়ানো ওয়েবসাইটগুলোয় খবরের ফরম্যাটে থাকে অগোছালো, বানানে থাকে ভুল।

হেডলাইন লক্ষ্য করুন: প্রথমে খবরটির হেডলাইন ভালো করে পড়ুন। মনের রাখবেন যেগুলো ভুয়া সেগুলোয় অতিমাত্রায় চমকপ্রদ শিরোনাম থাকে, যা দেখলেই সন্দেহ সৃষ্টি হবে। পাঠক আকৃষ্ট করতেই এমন চমকপ্রদ হেডলাইন দেয়া হয়। তাই বাস্তবতার সঙ্গে মিল না থাকলে হেডলাইন দেখেই আকৃষ্ট হওয়া উচিত নয়।

ছবি যাচাই: ভুয়া খবরে ব্যবহৃত ছবি বা ভিডিওতে অনেক কারসাজি থাকে। সন্দেহ হলে আপনার যাচাই করা উচিত। ছবি যাচাইয়ের জন্য বেশ কিছু উপায় রয়েছে। সবার প্রথমে যেতে হবে গুগলের কাছে।

এ জন্য এই ঠিকানায়- (images.google.com) গিয়ে সার্চের পাশে থাকা ক্যামেরা আইকনে ক্লিক করতে হবে। তারপর ‘upload an image’ বাটনে ক্লিক করে ডাউনলোড করা ছবিটি নির্বাচন করতে হবে। তাহলে গুগল ইমেজটি সার্চ করে এটি কোথায় ব্যবহার করা হয়েছে তা দেখিয়ে দেবে। সেখান থেকে ছবিটির উৎস সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।

খবরের সূত্র যাচাই: যে সূত্রে খবরটি আসছে সেটি কতটা নির্ভরযোগ্য তা যাচাই করা জরুরি। ফেসবুকে কোনো খবর চোখে পড়লে বা কোনোরকম সন্দেহ হলে তা গুগলে সার্চ করুন। দেখবেন এ বিষয়ে আসলেই কোনো খবর প্রকাশ হয়েছে কিনা।

খবরটি কি কৌতুক: ফেসবুকে কোনো খবর দেয়ার পর এটি কি আসলেই কোনো খবর নাকি কৌতুক সেটা দেখতে হবে। যে সূত্রে খবর দেয়া হচ্ছে সেটি কৌতুকপূর্ণ খবর কিনা তা দেখতে হবে। প্রকাশিত খবরটি মজা করে করা হতে পারে। তাই ওই খবরগুলোকে মজা হিসেবেই নিতে হবে। বিশ্বাস করার দরকার নেই।

ভুয়া ওয়েবসাইট শনাক্তকরণ

বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট মনে রাখুন: ফেক নিউজ বা ভুয়া খবর সারা বিশ্বের রাজনীতিতে অস্থিরতা তৈরি করেছে। ইন্টারনেট দুনিয়ায় কখনই এক নামে দুইটি ওয়েবসাইট হতে পারে না। সুতরাং আসল ওয়েবসাইটের সঙ্গে নামের বা ইউআরএল পার্থক্য থাকবে। সুতরাং আপনার বিশ্বস্ত সংবাদ প্রতিষ্ঠানটি ইউআরএল বা নামটি মনে রাখুন অথবা ওয়েব ব্রাউজারে বুকমার্কিং করে রাখুন।

ডোমেইন চেক: আপনার সামাজিক মাধ্যমের ফিডে যদি পরিচিত সংবাদ মাধ্যম থেকে এমন খবর দেখতে পান, যা তাদের সঙ্গে ঠিক খাপ খায় না, অথবা বাস্তবের সঙ্গে মিল নেই, তখনি আপনার সতর্ক হওয়ার দরকার আছে যখনই কোনো সন্দেহজনক সংবাদ চোখে পড়বে, তখন উচিত ডোমেইনটির দিকে তাকানো।

আইক্যান (ICANN)-এ চেক: বিশ্বের ওয়েবসাইট ঠিকানার বিষয়াদি দেখভাল করে থাকে আইক্যান (ICANN)। কোনো ওয়েবসাইট নিয়ে আপনার সন্দেহ হলে, আইক্যানের ডোমেইন অনুসন্ধান পাতায় গিয়ে তাদের ওয়েবসাইট ঠিকানাটি লিখে দিন বা পেস্ট করুন।

এই ঠিকানায়- https://whois.icann.org/en দেখতে পাবেন, ওয়েবসাইটটি কবে তৈরি হয়েছে, কে তৈরি করেছে। সাধারণত এরকম ভুয়া নির্মাতাদের পরিচয় লুকানো থাকে। কিন্তু আপনার পরিচিত সংবাদ মাধ্যমটি পুরনো হলে তাদের ওয়েবসাইটও হবে পুরনো।