৯৬ টাকায় বাড়ি বিক্রির বিজ্ঞাপন!

ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ , ০৫:১৩ পিএম
৯৬ টাকায় বাড়ি বিক্রির বিজ্ঞাপন!

বাড়ি কিনবেন ভাবছেন। তাহলে ইতালির দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপ সিসিলিতে চলে যান। সিসিলির সাম্বুকায় কিছু বাড়ি বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়েছে। সেখানে গেলে আপনাকে বাড়ি কিনতে কোনো বেগ পেতে হবে না। আবার এমনও হতে পারে দাম শুনলে আপনি একটি নয় ইচ্ছেমতো বাড়িও কিনতে পারেন। কেননা একটি বাড়ি কিনতে আপনাকে গুণতে হবে মাত্র এক ইউরো।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এমন তথ্যই দিয়েছে। আর যদি বাংলাদেশি টাকায় সেখানকার একটি বাড়ির দাম শুনতে চান সেটাও খুব বেশি না। মাত্র ৯৬ টাকা। এমন বিজ্ঞাপন দিয়েছে সাম্বুকা নগর কর্তৃপক্ষ। আর বাড়ি কিনতে পারবেন দেশি বিদেশি যেকোনো নাগরিক।

এমন নামমাত্র মূল্যে বাড়ি বিক্রির পেছনের কারণ হল সেখানে মানুষের বড় অভাব। শহরটিতে মানুষের বসতি খুবই কম হওয়ায় কর্তৃপক্ষ শহরটিকে জনবহুল করতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর বাড়িগুলোও নেহাৎ ছোট নয়। প্রতিটা বাড়ি ৪০ থেকে ১৫০ বর্গমিটার জায়গা নিয়ে নির্মিত।

পাহাড়ি শহর সাম্বুকার ঠিক পাশেই ভূমধ্যসাগর। সমুদ্র আর পাহাড়ের সম্মিলনে এক অপরুপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি যেন সাম্বুকা। কিন্তু আধুনিক এই যুগে মানুষ গ্রাম ছেড়ে পাড়ি জমাচ্ছেন শহরে। তাইতো ইতালির অন্য গ্রামের মতো এ অঞ্চলও প্রায় জনশূন্য হয়ে পড়েছে।

সিএনএনে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন সম্প্রচারিত হওয়ার পর অনেকের ভাবোদয় হয়। হাজার হাজার মানুষ ইতালির এই শহরে নিজের একটা আশ্রয় তৈরি করতে উৎসুক হয়ে ওঠেন। বিজ্ঞাপন দেয়ার পর গত শুক্রবার পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে বাড়ি কিনতে চেয়ে ৩৮ হাজার ই-মেইল পেয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ।

সাম্বুচার ডেপুটি মেয়র জুজেপ্পে কাচোপ্পো বিজ্ঞাপন দেয়ার পর মানুষের আগ্রহ দেখে বিস্মিত। তিনি বলেন, ‘এটা খুবই ভালো একটা ব্যাপার। আর মানুষের আগ্রহ দেখে আমি বিস্মিত। অল্প কয়েকদিনেই আমি চাপের মধ্যে পড়ে গেছি। ই-মেইলের ইনবক্স পুরো ভর্তি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ই-মেইলে না পেয়ে অনেকে আমার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছে। ফোনটা আমার সারাদিন বেজেই চলেছে। আমি এখন পর্যন্ত কয়েক হাজার ফোন কল রিসিভ করেছি। ঘুমানোরও সময় পাচ্ছি না। আমি একসঙ্গে এতগুলো দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছি।’

তবে টাকা দিলেই যে বাড়ি পাওয়া যাবে এ ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি মেয়র জুজেপ্পে । তিনি বলছেন, ‘আমি ক্রেতাদের উদ্দেশে বলবো আপনার হতাশ হবেন না। আপনাদেরকে আমি গ্যারান্টি দিচ্ছি। এখানে প্রতারণার কোনো ঝুঁকি নেই। আপনি যদি ওই বাড়ি কিনতে চান, তো সঙ্গে সঙ্গেই তা হাতে পেয়ে যাবেন।’