আনুশকার সফলতার গল্প

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ , ০৫:১৪ পিএম
আনুশকার সফলতার গল্প

গত কয়েক বছরে বলিউডের রেওয়াজ হচ্ছে আনুশকা শর্মা মানে হিট ছবি। আনুশকা শর্মা মানে প্রেক্ষাগৃহে দর্শকের হুমড়ি খেয়ে পড়া।

নিজের প্রযোজনায় ‘পরি’ থেকে শুরু করে বরুণ ধাওয়ানের সঙ্গে জুটি বেঁধে ‘সুই ধাগা’, সব ছবিতেই ব্যতিক্রমী চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। দর্শক তার অভিনয়ের প্রশংসাও করছেন।

আসন্ন ‘জিরো’ সিনেমার ট্রেলারেও বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের বিপরীতে ব্যতিক্রম চরিত্রে দেখা যাবে আনুশকাকে।

এসবের মধ্যেই বলিউডে আনুশকার ১০ বছর পূর্ণ হলো। ২০০৮ সালে ‘রব নে বানা দি জোড়ি’ দিয়ে অভিনয়ে হাতেখড়ি এই সুদর্শনী। নায়ক ছিলেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান।

আনুশকার সমালোচকরা তখন বলেছিলেন শাহরুখ খানের কারণেই লাইমলাইটে এসেছেন আনুশকা।এর পর একে একে ‘ব্যান্ড বাজা বারাত’, ‘পিকে’, ‘সুলতান’, ‘এনএইচ১০’-এর মতো ব্লকবাস্টার সিনেমা করে সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়েছে বিরাটপত্নী।

এই এক দশকে শুধু নায়িকা হিসেবেই নয় প্রযোজক ও উদ্যোক্তা হিসেবেও সফলতার পরিচয় দিয়েছেন আনুশকা। সাফল্যের মুকুট মাথায় উঠায় নেপথ্যে আনুশকার মনে করেন ‘ব্যতিক্রম রুচি’ তাঁকে সাহায্য করেছে।

এ বিষয়ে পিটিআইকে আনুশকা বলেছেন, ‘আমার পছন্দ সবসময় ব্যতিক্রম ছিল, কারণ এটা আমার ভেতরেই আছে। ব্যতিক্রমী রুচির কারণেই আমি সফল হয়েছি। ক্যারিয়ার শুরুই করেছিলাম একটু আলাদা ছবি দিয়ে, আর সে কারণে চলচ্চিত্র অঙ্গনে আমি নিজের ভিন্ন অবস্থান তৈরি করতে পেরেছি।’

এ তো গেল কাজের খবর। আনুশকার ব্যক্তিজীবনের বৃহস্পতিও কি কম আলোকিত? বিরাট কোহলির সঙ্গে যুগলবন্দি হওয়ার বছর পূর্ণ হল। দাম্পত্যজীবনে তারা বেশ সুখী মনে হচ্ছে।