রহস্যে ঘেরা যে দ্বীপ

ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪ জুলাই ২০১৭ , ০৫:০২ পিএম
রহস্যে ঘেরা যে দ্বীপ

পৃথিবীর অন্যতম আদিম ভূমি গন্ডোয়ানাল্যান্ড থেকে বেরিয়ে এসে জম্বুদ্বীপের জন্ম।

 

এ অজানা দ্বীপে রয়েছে পাঁচ মহাসমুদ্র। সাত মহাদেশ। সপ্তম আশ্চর্য। দশ দিক। এক চন্দ্র। পক্ষ দুই। অ্যালজেব্রার ভাষায় এ সবই কনস্ট্যান্ট।

 

এই ‘ধ্রুব’ সত্যের তালিকায় কোনও বদল না হলেও, নতুন এক দ্বীপের জন্ম নিয়ে বিজ্ঞানী মহলে বেশ তোলপাড় শুরু হয়েছে।

 

কিছুদিন আগেই ‘জিল্যান্ডিয়া’ নামে এক নতুন মহাদেশের খোঁজ পেয়েছিলেন বিজ্ঞানীরা। এটির অবস্থান বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলের মাত্র দেড়শো ফুট দূরত্বে।

 

অাটলান্টিক মহাসাগরের ওপর জেগে উঠেছে এক নতুন দ্বীপ। নর্থ ক্যারোলিনার কেপ পয়েন্টে একটি ‘শেল আইল্যান্ডের খোঁজ পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

 

বারমুডা ট্রাঙ্গেলের খুব কাছে হওয়ায় এপ্রিল মাস থেকেই দ্বীপটি চোখে পড়েছিল পর্যটকদেরও। আর তখন থেকেই অল্প অল্প করে প্রতিনিয়ত মাথা তুলছে দ্বীপটি।

 

প্রায় এক মাইল বিস্তৃত অর্ধচন্দ্রাকার এই দ্বীপের নামকরণ করা হয়েছে ‘শেলি আইল্যান্ড’। বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলের বেশ কিছুটা আগে পর্যন্ত ভিড় জমানো পর্যটকদের, এই দ্বীপের কাছে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

 

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, দ্বীপটি অত্যন্ত ভয়ঙ্কর। তার চারিদিকে বিদ্যুৎ তরঙ্গ রয়েছে। প্রচুর হাঙর ও স্টিং রে-র বসবাস ওই দ্বীপে।

 

বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল। বহু আগে থেকেই মানুষের নানা রহস্য। গল্পে, উপন্যাসে এই অঞ্চলটির বিশেষ নাম ‘শয়তানের ত্রিভূজ’।

 

বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলের কাছে গিয়ে নাকি বহু জাহাজ ও উড়োজাহাজ নিখোঁজ হয়ে গেছে। বহু চেষ্টা করেও সেগুলির কোনও খোঁজ মেলেনি।

 

এই সব অন্তর্ধান-রহস্যের জট আজও খোলেনি। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, দুর্ঘটনা, নাকি অলৌকিকতা, তারও কোনও প্রমাণ মেলেনি।